বই – ডাঃ জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে আরোপিত অভিযোগ ও অপপ্রচারের জবাব

49
প্রবন্ধটি পড়া হলে, শেয়ার করতে ভুলবেন না
রহমান রহীম আল্লাহ্‌ তায়ালার নামে-

ডাঃ জাকির নায়েকের সমালোচনার জবাবে বাংলাদেশে সর্বপ্রথম লেখা এক প্রমাণ্য গ্রন্থ

 

সংক্ষিপ্ত বর্ণনাঃ ডঃ জাকির নায়েক মুসলিম বিশ্বের একজন প্রখ্যাত দায়ী। বিশেষ করে যখন আধুনিক শিক্ষিত নাস্তিক-মুরতাদ ও বিধর্মী আলেমগনগণ ইসলামের বিরুদ্ধে নানান প্রশ্ন ও ভিত্তিহীন অভিযোগ দ্বার করিয়েছিল, সেই মুহুর্তে প্রয়োজন ছিল তাদের মতই শিক্ষায় শিক্ষিত একজন সম্ভ্রান্ত ব্যক্তি।

এতোদিন ডাঃ জাকির নায়েক শুধু আলোচনার বিষয় থাকলেও এখন আলোচনার পাশাপাশি সমালোচনার বিষয়ও বটে। তাঁর বিরুদ্ধে বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় বিভিন্ন ধরনের অসত্য এবং ভিত্তিহীন সমালোচনা করা হচ্ছে। মুসলিম উম্মাহর এই করুন সময়ে আমাদের কি করনীয় এবং ডাঃ জাকির নায়েকের সমালোচনার জবাবে এই প্রথম বই “ডাঃ জাকির নায়েক এবং আমরা” বইটি প্রকাশ করা হল। শত সহস্র ফিতনা ফাসাদের সময়ে যদি কেউ যদি সত্যের ওপর থাকেন, সত্য কথা বলেন তাহলে তো তাঁর বিরোধিতা হবেই। তিনি খ্রিস্টান, হিন্দু ধর্মের  ভুল প্রমান করে দিয়ে উগ্র হিন্দু ও খ্রিস্টান ও মুসলিম নামধারী ধর্ম ব্যবসায়ীদের আক্রশের লক্ষ্য বস্তুতে পরিনত হয়েছেন।

এই বইটিতে যে সব বিষয়ে আলোচনা করা হয়েছেঃ

  • ডাঃ জাকির নায়েক ও তার কার্যক্রম
  • ডাঃ জাকির নায়েকের ব্যাপারে অভিযোগ সমূহের গতি-প্রকৃতি
  • সমালোচকদের অভিযোগ ও তার জবাব
  • উত্তর দেওয়া হয়েছে যারা বলেন “জাকির নায়েক আলেম নন।” “তিনি পড়াশোনা করেছেন খৃষ্টান মিশনারী ও হিন্দুদের কলেজে” “(কুরান হাদিস নিয়ে অধ্যয়ন করার জন্য একজন অভিজ্ঞ শিক্ষকের তত্ত্বাবধানে থাকা প্রয়োজন কিন্তু) তার কোন শিক্ষক নেই।” “পর্দার ব্যাপারে ডাঃ জাকির নায়েকের শিথীলতা। তার অনুষ্ঠানে পুরুষ-মহিলাদের অংশগ্রহণ।” “ডাঃ জাকির নায়েকের অপব্যখ্যাঃ প্যান্ট-শার্ট-টাই পড়া জায়েজ”
  • তিনি গায়রে মুকাল্লিদ (আহলে হাদীস) সম্প্রদায়ের লোক হিসাবে এ সম্প্রদায়ের মতাদর্শের প্রছার-প্রশারকে নিজের মানুফেক্ট নির্বাচন করেন
  • বিভ্রান্তি গুলো যেভাবে ছড়ায়।
  • ডাঃ জাকির নায়েক সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত প্রশ্ন উত্তর।

কোন দল মত এর পক্ষে থেকে নয়, বরং একজন সাধারণ মুসলিম হিসাবে চিন্তা করুন, যে বেক্তি কত সুন্দর ভাবে যুক্তি দিয়ে মানুষকে ইসলামের দিকে দাওয়াত দিচ্ছেন, যে বেক্তি কোটি কোটি মুসলিম কে ইসলাম নিয়ে চিন্তা ভাবনা করার জন্য উৎসাহ প্রদান করেছেন,  বিধর্মীদের কাছে ইসলামদের ভুল ধারণা দূর করেছেন, কত  বিধর্মীদের ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করিয়েছেন এবং যারা তার বিরুদ্ধে বলেছেন তারা কতটূকু ইসলামদের জন্য কাজ করেছেন? তাদের কি অধিকার আছে এই ফেতনা সৃষ্টি করার?  প্রশ্নের উত্তর আপনাদের উপর ছেরে দেওয়া হল।

ডাঃ জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে আরোপিত অভিযোগ ও অপপ্রচারের জবাব – QA Server

ডাঃ জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে আরোপিত অভিযোগ ও অপপ্রচারের জবাব – Mediafire

Print Friendly, PDF & Email


'আপনিও হোন ইসলামের প্রচারক'
প্রবন্ধের লেখা অপরিবর্তন রেখে এবং উৎস উল্লেখ্য করে
আপনি Facebook, Twitter, ব্লগ, আপনার বন্ধুদের Email Address সহ অন্য Social Networking ওয়েবসাইটে শেয়ার করতে পারেন, মানবতার মুক্তির লক্ষ্যে ইসলামের আলো ছড়িয়ে দিন। "কেউ হেদায়েতের দিকে আহবান করলে যতজন তার অনুসরণ করবে প্রত্যেকের সমান সওয়াবের অধিকারী সে হবে, তবে যারা অনুসরণ করেছে তাদের সওয়াবে কোন কমতি হবেনা" [সহীহ্ মুসলিম: ২৬৭৪]

49 মন্তব্য

  1. আমি কওমী দেওবন্দীদের অন্ধ অনুসারী , কুরআন হাদীসের উপরে মাযহাবী ফিকাহের স্থানদানকারী কওমী মাদ্রাসার আলেমদের ঘৃণা করি । তারা ডা. জাকির নায়েকের সমালোচনা শুধু এই জন্য করে যে , ডা. জাকির নায়েক কুরআন এবং হাদীসের দলীল দিয়ে তাদের মাযহাবী ফতোয়ার সমালোচনা করেছেন । তারা লেবাসের আড়ালে যা-ই করুক না কেন সেটাই ইসলাম আর ডা. জাকির নায়েক কোট-টাই পরে দলীল ভিত্তিক কথা বললেও তিনি ইহুদী-খ্রীষ্টনের দালাল । আল্লাহ আমাদের জাতিকে এদের হাত থেকে রক্ষা করুন ।

    তবে লেখক একটি বিষয় লিখেছেন এসমস্ত আলেমদের পক্ষ হয়ে যেটাতে আমি একমত হতে পারিনি । বলেছেন ডা. জাকির নায়েক কম্পরেটিভ রিলিজিয়ন এর উপর বিশেষজ্ঞ তার এ বিষয়ের উপরই কথা বলা উচিত । তার ফতোয়া দেয়া উচিত নয় । ফতোয়া দিবে এসমস্ত আলেমরা যারা তাদের মাযহাবী ফতোয়ার কিতাবকে কুরআনের মত অকাট্য মনে করে । আচ্ছা আপনারাই বলুন ডা. জাকির নায়েক মঞ্চে দাড়ান ইসলামকে সর্বদিক দিয়ে বিজয়ী করার জন্য । এখন কোন অমুসলিম তাকে প্রশ্ন করলেন এমন একটি মাসআলা সম্পর্কে মাসআলায় এসমস্ত আলেমরা ভুল ফতোয়া দিয়েছে , তার বিবেকও বলছে এটা বিভাবে হতে পারে সে হয়তো ইসলামের প্রতি দূর্বল এধরনের কিছু বিষয় তাকে ইসলাম গ্রহণে বাধা দিচ্ছে । তাই সে বুঝার জন্য প্রশ্ন করেছে । এখন ডা. জাকির নায়েক যদি বলেন যে , ফতোয়া দেয়া আমার কাজ নয় , আপনি দেওবন্দ মাদ্রাসার ফতোয়া বিভাগে যোগাযোগ করুন । এতে কি ইসলামকে বিজয়ী করা সম্ভব হবে না তার পক্ষে ইসলামের ছায়াতলে আসা সম্ভব হবে ?

    আমি আপনাদেরকে আহবান করছি ডা. জাকির নায়েক যেখানে যেখানে তাদের সমালোচনা করেছেন সেখানে কে সঠিক তা যাচাই করে দেখুন । দেখবেন আসল সত্য কোথায় । তবে নবী সাঃ ছাড়া কোন মানুষই ভুলের উর্ধে নয় । ডা. জাকির নায়েকও ভুল করতে পারে । তবে এ সমস্ত গোঁড়া আলেমদের ‍ভুলের তুলনায় তার ভুল মহাসাগরে একটি শিশিরবিন্দু ।

  2. Assalamu Alaykum
    Bhai Mukter Zaman

    Apni Onek Coment koresen. Apnar likha bholo hoese.
    Eto kiso liklen apni kinto kono durbol point bolte paren nai Dr. Zakir Naik er biruddhe.
    Age nije kiso shikhun tar por annoke Advice diben, Dua kori Allah apnake shothik hedaet diben.

    Ar shombob hole Koraner Tafsir porben Allah caile tokhon bujben.

    Jajakallahu Khairan

  3. ঢাকা, বাংলাদেশ থেকে
    মুহাম্মাদ ইসহাক খান -বলছি

    বইটি কষ্ট করে পিডিএফ আকারে ছড়িয়ে দেয়ার জন্য কুরআনের আলো কর্তৃপক্ষকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

    এই বইয়ের অনলাইন বা ই কপি সবার জন্য উন্মুক্ত। যে কেউ যে কারো সাথে শেয়ার করতে পারেন। তবে বাংলাদেশে বা দেশের বাইরে বইটি প্রিন্ট করতে চাইলে যোগাযোগের অনুরোধ থাকবে। অবশ্য ইতিমধ্যেই ভারতের মুর্শিদাবাদের ঐতিহ্যবাহী প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান তাওহীদ পাবলিকেশন্সকে এই বইটি ভারতে ছাপা ও বিক্রির জন্য অনুমতি দেয়া হয়েছে। বাংলাদেশে খান প্রকাশনী এটি সবার কাছে পৌঁছে দেয়ার চেষ্টা করছে।

    সকলের আন্তরিক নেক দু‌’আ কামনা করছি। আল্লাহ আমাদের সকলকে তার দীনের জন্য কবুল করুন।

  4.  জাযাকাল্লাহ ভাই আপনি একটা ভাল বই লিখছেন.আল্লাহ আপনাকে ভাল রাখুন.
    আর যাকিরের বিরুদ্ধে কথা বলার মত লোকের অভাব নেই বিশেষ করে আমাদের সমাজের কথাকথিত ইমাম —-
    তাদের সাথে আমি কথা বলছি “তারা বলে জাকির টাই পরে এইটা ইসলামের হারাম”আমি বলি প্রমান দেন.তারা বলি আমি অহাবি……আমি বলি বুজলাম আমি ওহাবি কিন্তু প্রমান কই?তারা বলে তাদের বেরলবি,দেওবন্দ আলেম রা বলছে আর মিশকাত শরিফে আছে …. আমি বললাম কোন অধ্যায় সে বলল আমি তোমাকে দেবনে প্রমান!আমি বললাম আচ্ছা.এইজে গেল আর প্রমান আনল না.আসলে তারা না জেনে বলে.ভ্রান্ত.

  5.  জাকিরের বিরুদ্ধে যারা বলে তারা সবাই আসলে দেওবন্দি বা রিজভি  আকীদার লোক.আমি তাদের বলব “প্রথমে নিজের আকীদা ঠিক করেন,তার পরে অন্ন্যকে বাতিল বলবেন””আর দেওবন্দের আকীদা আমরা ইসলাম সচেতনরা জানি.ইনশাআল্লাহ.

  6.   

    BmnvK fvBqv, Avcbv‡K A‡bK A‡bK ab¨ev`| GB iKg
    GKUv eB †jLvi Rb¨| Av”Qv  fvBqv  Wv: RvwKi bv‡qK Gi Kvi‡Y Øx‡bi KZUzKz DcKvi
    n‡q‡Q, ‡Kv_vq Øxb wR›`v n‡q‡Q,  ‡Kv_vq
    gymjgvb  Bûw`-Lªxóv†bi AvMÖvmb †_‡K gyw³
    †c‡q‡Q, GKUz Rvbv‡j Avcbvi Dci wPiK…ZÁ _vwKe | mg‡jvPbv bq Rvbvi Rb¨ |

  7. @4efb7c6d71f95460b6704d22431306fa:disqus
    ভাই আমি এক জন মুসলিম.আল্লাহর সামান্য পাপী বান্দা.আমি চেষ্টা করি সরাসরি নবীর (সা ) এর আদেশ নিশেদ এবং কুরআন মানার.আর আমার আকিদা যদি জানতে চান তহলেও বলব আমি মুসলিম.
    আর আমাকে যখন কেহ বলে আপনি কোন মাযহাব এর(বিশেষ করে রাফ’উল ইয়াদাইন) আমি বলি আমি ইসলাম মাধাব এর তারা বলে না না হানাফি না সাফি বা ….. আমি বলি কোন টাই না তবে তাদের কথা কুরআন এর বা হাদিয এর সাথে মিল্লে মানতে সমস্যা নেই.
    আবার কারর সাথে কথা বলার সময় যদি কোন কারনে বলি নবি(সা) মারা গেছেন তখন বলে আমি নাকি ওহাবি.আলহামদুলিল্লাহ্‌.
    আরও এমন অনেক
    তবে আমি নিজেকে মুসলিম বলি.
     

  8. মুফতি শফি (রহঃ) লিখিত উর্দু মারেফুল কুরআনে আকিদা বিষয়ক
    ভুল নেই। তবে বাংলাদেশ থেকে অনুদিত বাংলা অনুবাদের ক্ষেত্রে ভুল পাওয়া গেছে।
    মারেফুল কুরআনের বাংলা সংস্করণ দুটি; ১.ইসলামিক ফাউন্ডেশন থেকে প্রকাশিত ১১
    খণ্ডের অনুবাদ, ২. মাওলানা মুহিউদ্দিন খান কর্তৃক অনুদিত
    (সৌদি সরকারের নির্দেশে), যা ১ খণ্ডে সমাপ্ত সংক্ষেপিত সংকলন।
    এটি কয়েক বছর আগেও সৌদি সরকার কর্তৃক বাংলাদেশি হাজীদের দেওয়া হতো। বছর দুয়েক আগে
    এতে কিছু ত্রুটি পরিলক্ষিত হওয়ায় একটি সংশোধনী বোর্ড গঠিত হয়। সৌদি সরকারের নির্দেশে
    গঠিত উক্ত সংশোধনী বোর্ডের অন্যতম সদস্য, মারেফুল কুরআনের লেখক মুফতি শফি এর পুত্র
    মুফতি তাকী উসমানীর সুযোগ্য শাগরেদ, ইসলামিক রিসার্চ সেন্টারের শিক্ষা সচিব মুফতি
    মীজানুর রহমান সাঈদ সাহেব হুজুরের বুখারি শরীফের ক্লাস চলাকালীন সময়ে হুজুর আমাদের
    এ কথাগুলো স্পষ্টভাবে বলেছিলেন। কিছু লোক বিভ্রান্তি ছড়িয়ে বলছে, মুফতি শফি (রহঃ)
    লিখিত উর্দু মারেফুল কুরআনে আকিদা বিষয়ক ভুল রয়েছে। এটি নিছক দুষ্টলোকের ছড়ানো
    বিভ্রান্তি। আমি তাদের চ্যালেঞ্জ করছি।

  9. ডাঃ জাকির নায়েকের বক্তব্য আদৌ শোনা যাবেনা- বিষয়টি এমন
    নয়। বাস্তবতা অনুসন্ধান করতে গিয়ে আমি দেখেছি যে, বিখ্যাত আলেম পাকিস্তানের শরিয়াহ
    সুপ্রিম কোর্টের সাবেক চীফ জাস্টিস মুফতি মুহাম্মাদ তাকি উসমানী, দারুল উলুম দেওবন্দ
    মাদ্রাসা প্রদত্ত ফতওয়া, উপমহাদেশের শ্রেষ্ঠ আলেম ও দীনি প্রতিষ্ঠান এবং বাংলাদেশের
    বিশিষ্ট আলেম ও মাদ্রাসাসমূহ কর্তৃক স্বাক্ষরিত ফতওয়াসমূহে এ কথার উল্লেখ সুস্পষ্টভাবে
    আছে যে, জাকির নায়েক এর
    বক্তব্য শোনা যাবে। তবে শরিয়া, ফিকহ বা মাসায়েলের ব্যাপারে তার বক্তব্য প্রামাণ্য বলে তখনই
    গণ্য হবে, যখন তার বক্তব্যের সমর্থনে অন্য কোনো হক্কানি বড় আলেমের অনুরূপ বক্তব্য
    পাওয়া যাবে। ফিকহ, মাসাআলা বা শরিয়া বিষয়টিকে পৃথকভাবে শর্তযুক্ত করার
    কারণ হল, জাকির নায়েক বড় একজন দায়ী। তাঁর দাওয়াতি কার্যক্রম প্রশংসনীয়। তবে তিনি
    কিন্তু আলেম নন। তাই মাসআলা বা ফিকহের বিষয়ে তাঁর ভুল হয়ে যেতে পারে, যেমন কিছু
    বিষয়ে হয়েছে। তাই আমরা তাঁর ভুলগুলো গ্রহণ করবোনা। তাহলে ঝামেলা শেষ হয়ে যায়। একটি
    কথা আমাদের অবশ্যই মনে রাখতে হবে, আলেমগণই কুরআন, হাদিস এবং ইসলামের প্রকৃত
    ধারক-বাহক। তাদের মাধ্যমেই কিন্তু আমরা দ্বীনে ইসলাম পেয়েছি। হাদিসের ভাষ্যমতে,
    আলেমগনই নবীগণের উত্তরাধিকারী। তাই এক্ষেত্রে বিরূপ অবস্থান নিয়ে আমরা যদি আমাদের
    আলেমদেরকে বা কোন মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষকে দোষারোপ করি কিংবা জাকির নায়েকের সকল
    বক্তব্য অকাট্য ও অপরিবর্তনীয়রূপে গ্রহণ করি, তাহলে কিন্তু ভুল হবে। আমারা কেবল
    সত্য ও সঠিকটাকেই গ্রহণ করবো। যদি ভুল কিছু জানতে পারি তবে অবশ্যই সেগুলো বর্জন
    করবো। আল্লাহ আমাদের সবাইকে সত্য উপলব্ধির তাওফিক দান করুন।

  10. বইটির ১৪ ও ১৫ নং পৃষ্ঠা পড়ার মত। লেখা আছে, জাকির নায়েক
    ভারতের আল্লামা সালমান নদভী সাহেবের কথা আন্তরিকভাবে মেনে নিয়েছেন যে, তিনি (জাকির
    নায়েক) আগামীতে আর ফতওয়া দিবেন না। তাহলে ঝামেলা শেষ।সবসময় ফিতনার
    ব্যাপারে আমাদের সচেতন ও সত্য গ্রহনে দ্বিধাহীন থাকতে হবে। তাঁর ভুল হলে অবশ্যই
    আমরা হাক্কানি আলেমদের কাছ থেকে জেনে নিয়ে সে ভুলগুলো পরিত্যাগ করবো। এসব নিয়ে
    পারস্পারিক বিতর্ক বাড়িয়ে ইসলামের শত্রুদের সুযোগ করে দেওয়া বোকামি। সবাইকে ধন্যবাদ।

  11. যদি আপনার বাসায়
    ডিস এর লাইন থেকে থাকে তাহলে আপনি শুনতে পারেন,

    কিন্তু না থাকে
    তা হলে না শুনায় ভাল,

    কারন, সাবাই ডিস
    এর কুফল সম্পকে সবাই যানেন।

    উধারনসরুপ

    Wasa পানির লাইন
    এর সাথে মাঝে মাঝে সুয়ারেজ লাইন মিলে

    পানির সাথে ময়লা,
    আবজনা আসে তাই আমরা পানি ফুটিয়ে খাই,

    আর যদি,

    Wasa সুয়ারেজ
    লাইন দিয়ে পানি দেয় তা হলে কি,

    পানি ফুটিয়ে খেতে
    পারব!!!!!!!!!!!!

  12.  ami dr zakir naik, er onek boktobbo sonsi and onek boi porsi sob gulo e sotik quraan n sohi hadis (hadith) motaben alosona kore taken jara dr zakir naik ke ferka bolen tara islam somporke valo janena, jara dr zakir naik ke vranto bolen tara moloto bidati lok, jara pir pojari mazar pojari kobor pojari tara dr zakir naik ke vranto bole, ami quran n sohi hadiser pokke kota bolbo inshallah ja sotik tar sathe achi

  13. I want to ask a simple question to Mr Zakir Nayak is… According to the holy Quraan how do prove your self as Momeen? 
    In the holy Quraan Allah Says… Those who do not do the judgement according to the holy Quraan are Kafeer, zalim, Fasiq.
    I need the clear answer form him, if he think as a pure Muslim.
    waiting for the answer 

  14. আকীদা বোলতে আপনি কি জানেন? ঈমান এবং আকীদা বোলতে আপনি কি বুঝেন? দুইটার গুরুত্ত বুঝিয়ে বলবেন প্লীজ। 

  15. ভাই আপনার জীবন বৃত্তন্ত টা দেন। দেখি আপনি কত বড় আলেম হইছেন। ধর্ম নিয়ে বেশি বাড়াবাড়ি করতেছেন। আকিদা সম্মন্ধে আপনি কী ঝুঝেন। নিজের নামটা কে ঠিক ভাবে দিলেন না। আমাকে ইমেল করেন [email protected]

  16. অসাধারণ ও উপযুক্ত একটি বই। ডাঃ জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে অপপ্রচারকারীদের জন্য একটি সময়োপযুগী দাত-ভাংগা জবাব এই সুন্দর বইটি। লেখককে এবং কুরআনের আলোকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

  17.  জাকির নায়েকের পক্ষে যেসব উক্তি প্রচ্ছদে ছাপা হয়েছে অভিযোগ আছে যে, সেখানে সূক্ষ প্রতারণার আশ্রয় নেয়া হয়েছে। অর্থাৎ মন্তব্যগুলি ছিল অনেক আগের। কিন্তু বিতর্ক শুরুর আগে। বর্তমানে সেসব আলেমরা কি বলছেন সৎসাহস থাকলে তারিখসহ তাদের মন্তব্য প্রকাশ করুন। মনে রাখতে হবে জাকির নায়েক কোন নবী নয়। তিনি ভালো হলে মুসলিম উম্মাহর জন্য তা ভালো। কিন্তু তিনি যদি ভুল করেন আর আমরা সেটা এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করি তাহলে সেটা মুসলিম জাতির ধ্বংসের কারণ হবে। আল্লাহতায়ালা আমাদের সকলকে দ্বীনের সহীহ বুঝ দান করুন। আমীন।
    সাঈদ আহমদ, উত্তরা, ঢাকা।

  18. Jei Alem ra tar against e bolechen, shee shob boiyer answer dewa hoyeche, ebong jeikhane jeikhane bolechen shei boiyer page number dewa ache.. apni thik bhabe and open mind niye porun… 

    “অর্থাৎ মন্তব্যগুলি ছিল অনেক আগের।” jodi tar naame allegation ashe taholei toh er jobab dewa hobe taina? aage ki bhabe montobbo gula dewa hoi??apnar shathe ekmot je shee nobi nah, shob manusher e bhul ache… shee jodi Quran ebong Sunnah r reference diye kotha bole, tahole aeta kon srenir Alemder jonno khotikarok aeta ekhon shadharon manush o bojhe.. Dr Zakir Naik er lecture shune  onek shadharon Muslim o Islam niye chinta bhabna kora shuru koreche, koto Non Muslim ra Muslim hoyeche aeta ki apni shikar koren? keno amra shudhu manusher negetive side dekhi, keno amra manusher positive side dekhete pari nah? Allah tumi amader ontor ke porishkar kore daw. Ameen

  19. প্রিয় জনাব সাঈদ, বোঝাই যাচ্ছে আপনি হচ্ছেন ঐ মানুষগুলোর প্রতিনিধি যাদের বিষয়ে লেখক জবাব দিয়েছেন এবং আপনি বইটি যে মনোযোগ দিয়ে, আগ্রহ নিয়ে পড়েন নাই তা আপনার লেখাতেই প্রকাশ পেয়ে গেছে। বিরুদ্ধচারণ করার মন-মানসিকতা নিয়ে কোন কিছু করতে গেলে বা পড়তে গেলে শয়তানের ওয়াসওয়াসা থেকে রক্ষা পাবেন না, বরং নিজের ফাঁদে নিজেই পড়বেন। যার ফলাফল ইহজগতে অথবা আখেরাতে পাবেনই, এটাই ‍নিশ্চিত। আল্লাহ্ তুমি আমাদের সবাইকে সিরাতুল মুস্তাক্বিম-এর পথে পরিচালিত কর এবং রসুল (সাঃ)-এর রেখে যাওয়া সহী পথে চলার তৈাফিক দান কর, আমীন।

  20. (এই মন্তব্যটি একজন ভাইকে দেয়া আমার কিছু
    প্রশ্নের উত্তর। কপি-পেষ্ট করলাম)

    কিছু ভাইকে
    দেখা যাচ্ছে ড. জাকির নায়েকের অন্ধ অনুসরন করছেন। তাদের কথাবার্তা শুনলে মনে হচ্ছে ড. জাকির নায়েক সকল ভুল-ক্রটির উদ্ধে এবং
    যেই তার বিরুদ্ধে কথা বলবে সেই মাযার পুজারি, কবর পুজারি।

    আমিও তার
    ভক্ত তবে তার ভুল হলে সেটাও মেনে নেব এরকম ভক্ত নই। আমাদের কারো উচিত নয় কারো প্রতি এত অন্ধ ভক্তি রাখা যেন তিনি সকল
    ভুল-ক্রটির উদ্ধে।

    ড. জাকির
    নায়িক সম্পর্কে শরীয়া ইনষ্টিটউট আমেরিকা’র ফাতওয়া………….

    http://central-mosque.com/index.php/society/avoiding-dr-zakir-naik-in-matters-of-fiqh.html

    গীবত এক
    জিনিস এবং মানুষকে সত্য জানানো আরেক জিনিষ।

    আজ যদি আপনি
    সাধারন মানুষকে কাদিয়ানি সম্পর্কে জানান বা যখন ওলামারা যখন কাদিয়ানি সম্পর্কে
    মানুষকে জানিয়েছে তখন কি তাদের গীবত হয়েছিল ???

    ওলামাদের
    কাজ হল দ্বীনের ব্যাপারে মানুষকে সঠিকটি জানিয়ে মানুষের ইমান ও আমল হেফাজত করা।

    এবং বর্তমান
    আলেমরা নিজে থেকে তার সম্পর্কে কিছু বলেন নি,

    বরং তারা ঐ
    সময় তার সম্পর্কে বলতে বাধ্য হয়েছেন যখন তাদেরকে সাধারন মানুষ ওনার বিভিন্ন কথা
    সম্পর্কে প্রশ্ন করতে থাকে…………

    দেখুন……….

    http://jamiatulasad.com/?p=894 

    ইয়েমেনে
    প্রসিদ্ধ ইসলামী মারকায দারুল হাদীস দাম্মাজ ইয়েমেন-এর পক্ষ থেকে উক্ত মারকাযের
    প্রধান মুফতী শাইখ ইয়াহইয়া ইবনে আলী আবু আবদুর রহমান আল-হাজুরী দলীল প্রমাণসহ
    বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরে সুদীর্ঘ ফাতওয়া প্রকাশ করেছেন।

    এছাড়া উক্ত
    ফতওয়া উর্দু অনুবাদ ইন্টারনেটে প্রকাশ করা হয়েছে।

    http://www.deoband.net/uploads/2/1/0/4/2104435/drzakirnaik2.pdf

    ড. জাকির
    নায়িক সম্পর্কে সালাফীদের বক্তব্য……..

    http://www.salafitalk.net/st/viewmessages.cfm?Forum=9&Topic=5611

    this is zakir naik’s son, performing a
    rap song, written by zakir naik’s WIFE ……

    ড. জাকির
    নায়েক ও তাবলীগ জামাআত….

    http://www.somewhereinblog.net/blog/monjurrocks/29441115

  21. DR.JAKIR NAEKER POKKHE TAR AK ONUGOTO MUQLLID O DAS KOTO KU KOWSOLE MANUSKE BIVRANTO KORAR LOKKHE HAQQANI ULAMADER FATWA SOHO NIJEDER JOBAB DIESEN .AFSOS TARA AK OSUDDHO QURAN TELAWA KARI ARBI JANE NA AMON AK BEKTI KE IMAM NIJUKTO KOECHE ZETA AI HADESER SOMPORNO RUP”INNA ALLAHA YAQBIDUL ILMA AN TIJA AN YAN TAZI UHO MINAL IBADI OLA KIN YAQBIDUL ILMA BI QABDIL ULAMA ITTAKHAZANNAS  RU UOSAN JUHHALA .FASALU FA AFTHU BI GAIRE ILMIN FA DALLU OA ADOLLU” OTHO ALLAH ILM ALEMKE UTHINEA RAS KORBEN TARPOR MANUS JAHELDER K FATWA MASLA JIGGASA KORBE FOLOTO TARO GOMRAH HOBE ONNODER KEO GOMRAH KORBE.

  22. DR.NAEKER DAWA NIA KONO HAQQANI ALEM PROSNO TULE NAI SE ALEM NA HOE ALEMDER MOHAN KAJ KORCHE BOLE ATO BIRODHITA KARON SE ALEM HOWAR JOGGO NOI.KINTU AKHNE JOBAB GOLO TAR DAWATER OPOR VITTI KOREI DEWA HOESE TAR VULER OPOR NOI

  23. TO ME,D. ZAKIR NAIK IS LIKE AN INSTITUTION.THE CRITICS DO NOT WANT TO ACCEPT IT .BECAUSE IT IS DEMEANING THEIR FAME.WE LOVE TO HANKER AFTER ONLY OUR FAME.ISLAM IS A GREAT RELIGION BECAUSE IT IS BASED ON ARGUMENT.NO INTELLECTUAL PERSON’S MIND WANTS TO ACCEPT AN IDEA WITHOUT REASON.DR.NAIK IS SUCCESFUL IN DOING THIS. I WANT MORE PROGRESS OF HIM & HIS INSTITUTION.A.S.M.SALAHUDDIN,KHAGRAGAR,RAJBATI,BURDWAN-4

    A

  24. শতধা বিভক্ত আমাদের দেশের আলেম গুলোর মত যেমন ইসলামপন্থী দলগুলো বিভক্ত তেমনিই আমাদের দেশের মাদ্রাসাগুলোও তাদের মতাদর্শ নিয়ে শতধা বিভক্তিতে রূপান্তরিত। আগে জানতাম আমাদের দেশের কওমী মাদ্রাসাগুলো দেওবন্দী মতাদর্শের ভিত্তিতে এক ও অভিন্ন। আর এখন দেখতে পাচ্ছি তাদের মতাদর্শের ভিতরেও বিভক্তির ছোঁয়া লেগে তাদের ঐতিহ্য হারাতে বসেছে। বাংলাদেশী এক ওয়েবসাইটে (http://jamiatulasad.com/?p=894 ) দেখলাম দেওবন্দ থেকে এক ফতওয়া দেয়া হয়েছে ডাঃ জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে। আবার “ডাঃ জাকির নায়েক এবং আমরা” নামক একটা বইতে (https://www.facebook.com/media/set/?set=a.3492661281402.2130775.1417642272&type=1 ) দেখলাম সেই ঐতিহ্যবাহী দেওবন্দী মতাদর্শের কিছু কওমী মাদ্রাসা থেকে ডাঃ জাকির নায়েককে সমর্থন দেয়া হচ্ছে ! অর্থাৎ বুঝা যাচ্ছে কওমী মাদ্রাসাগুলোও তাদের ঐতিহ্য হারিয়ে শতধা বিভক্তিতে রূপ নিতে যাচ্ছে ! হায়রে ওলামার দল ! যাদের হাতে ইসলামের ঝান্ডা কতই না তাদের মতাদর্শ ! এই যদি হয় মুসলমানদের আদর্শ , তবে কিভাবে হবে ইসলামের জাগরণ ?

  25. লেখককে আন্তরিক ধন্যবাদ জানাচ্ছি। আমার একটি মতামত হচ্ছে – আমরা কি ডা: জাকির নাযেক কে আমাদের দেশে আমন্ত্রন জানাতে পারি না? যারা তার বিরোধিতা করছেন তারা কি উন্মুক্ত বিতরকে অংশগ্রহন করার সত সাহস দেখাতে পারবেন?

  26. আমি ডাঃ জাকির নায়েকের ৯০% লেকচার শুনেছি  ইসলাম বিষয় যা বলে কুরআন এবং সহীহ হাদিসের রেফারেঞ্চ দিয়া বলে। তার মাধ্যমে  ইসলামের যে উপকার হয়েছে  তাহা বিরল । বিশেষ করে বেধর্মি রা  যখন ইসলামের বিরুধ্যে  হাজার হাজার বই লিখছিল এবং কুরআনেকারিমের শত শত ভুল আছে বলে চ্যলেঞ্চ ছুরে দিয়ে ছিল দীর্ঘ আট বছর সেই চ্যলেঞ্চ কেউ গ্রহণ করেন নাই। অবশেষে ডাঃ জাকির নায়েক সেই চ্যলেঞ্চ গ্রহন করেন  এবং কুরআন কারিমে কোথাও কোন ভুল নেই তাহা প্রমান করে দেন। দেখুন ডাঃ  জাকের নায়েক  এবং উইলিয়াম ক্যম্বল সেই ঐ তিহাসিক বিজয় ।

  27. সম্মানিত লেখক ও পাঠকগন, আমি একটি গুরুতর সমস্যায় পরেছি, ব্যাপারটা “কবর” নিয়ে। আমি কুরআনের বাংলা অনুবাদ পড়ি। কুরআন পড়ে আমি যতটুকু বুঝতে পারি,আল্লাহতালা কুরআনে বলেছেন, মানুষের মৃত্যুর পর কেয়ামত দিবসে বিচারের পর যার যার প্রাপ্য বুঝিয়ে দেবেন।আল্লাহতালা আরো বলেছেন বিশ্বাসীদের সম্পর্কে” আমি এদেরই ভালো কাজ গ্রহন করি ও মন্দ কাজ উপেক্ষা করি”……এছাড়া বলেছেন, দুনিয়ার জীবন পরীক্ষা এবং এর ফলাফল দেওয়া হবে বিচার দিবসে….। এখন আমার প্রশ্ন হলো, আল্লাহ কি বিচারের আগেই কবরে শাস্তি বা শান্তি দেবেন? কবরে শাস্তির ব্যাপারে কুরআনে আমি এখনো কিছু পাইনি…. আর বিচারের আগেই যদি শাস্তি বা শান্তি দেন তা হলে বিচার দিবসে ওয়াদা কেন করেছেন? অনেকে বলেন অল্প পাপের কারনে শাস্তি দিয়ে পাপ মোচন করা জন্য কবরের শাস্তি
    । কিন্তু তবুও এখানে আল্লাহর ওয়াদার বরখেলাপ হয়,,,এবং বিশ্বাসীদের অল্প পাপ যে তিনি উপেক্ষা করেন তার বিরুদ্ধে যায়…এছাড়া দুনিয়ার কোন বিচারালয়েই বিচারের আগে শাস্তি বা অব্যহতি দেওয়া হয় না……… কেউ সঠিক উত্তর জানলে জানাবেন দয়া করে,,,,, মহা সমস্যায় আছি….

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.